চট্টগ্রামে বিস্ফোরণ: দুই তদন্ত কমিটির কাজ শুরু

0
44
বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় তদন্ত দল। ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামে পাথরঘাটায় বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় জেলা প্রশাসন ও নগর পুলিশের পক্ষ থেকে গঠিত দুটি তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এ জেড এম শরিফ হোসেনকে প্রধান করে ফায়ার সার্ভিস, সিটি করপোরেশন, কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (কেজিডিসিএল), সিডিএ ও পুলিশের একজন প্রতিনিধির সমন্বয়ে গঠিত কমিটিকে আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলেছেন জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন।

আজ সোমবার সকালে নগর পুলিশের পক্ষ থেকে গঠিত আরেকটি তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিভিন্ন তথ্য-উপাও সংগ্রহ করেছে। এসময় ৩৪ নম্বর পাথরঘাটা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইসমাইল বালি, কোতোয়ালী থানার ওসি মো. মহসীন সহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

নগর পুলিশের দক্ষিণ জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) মেহেদী হাসান, নগর বিশেষ শাখার অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মঞ্জুর মোরশেদ ও কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা, কেজিডিসিএল এর মহাব্যবস্থাপক (ইঞ্জিনিয়ারিং ও সার্ভিসেস) প্রকৌশলী সারোয়ার হোসেন, উপ-মহাব্যবস্থাপক (কোয়ালিটি কন্ট্রোল) প্রকৌশলী আহসান হাবিব, উপ-মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয়) প্রকৌশলী আবু জাহের উপ-মহাব্যবস্থাপক (প্লানিং) প্রকৌশলী শফিউল আলম সহ সংশ্লিষ্টরা এ ঘটনা তদন্ত করছেন।

সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সেবা সংস্থাগুলোর সমন্বয়ে গঠন করা তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে। কমিটির প্রতিবেদনে যদি কারও অপরাধ প্রমাণিত হয় তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক পূর্ণচন্দ্র মুৎসুদ্দী বলেছেন, ক্ষতিগ্রস্ত ভবনের নিচতলায় সীমানা প্রাচীরের সঙ্গেই ছিল গ্যাস রাইজার। বিস্ফোরণ হয়েছে নিচতলাতেই। ক্ষতিগ্রস্ত ভবন ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে।

বিস্ফোরক অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিদর্শক তোফাজ্জল হোসেন বলেন, ওই ভবনের রাইজার ও পাইপলাইন অনেক পুরনো। অরক্ষিত ছিল। পাইপলাইনের ফুটো দিয়ে গ্যাস বের হয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আমরা ধারণা করছি।

তবে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) আ ন ম সালেক বলছেন, গ্যাস লাইনের ত্রুটি থেকে বিস্ফোরণের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here